Ismat Ara

ইসমত আরা। জন্ম: ২১ আগস্ট ১৯৬৭ইং, লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানায় গড্ডিমারী ইউনিয়নে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- বিএসএস। পেশা- শিক্ষকতা, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। পিতাঃ মৃত্য ইয়াছিন আলি প্রধান শিক্ষক। মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়। মাতা- মোছাঃ জোবেদা বেগম পেশা- গৃহিনী। এক ভাই চার বোনের মধ্যে আমি বড়। দুই ভাই বোন বুয়েট অধ্যায়ন শেষে ভাইটি ১৭ তম বি. সি. এস পাশ করে বাংলাদেশে একজন প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা। বোনটি আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পি এইচ ডি ডিগ্রী লাভ করে সেখানে একজন প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা এবং সেখানে সেটেল। মেজো বোন- এম এ, এম এড। একটি মাধ্যমিক স্কুলে শিক্ষকতা পেশায় আছেন। ছোট বোন এমএসসি, বিএড। ব্যাংক কর্মকর্তা। স্বামী মৃত আব্দুস ছাত্তার, সন্তান- তিন মেয়ে, এক ছেলে। বড় দুই মেয়ে মাস্টার্স পাশ। ছেলে ইঞ্জিনিয়ারিং অধ্যায়নরত। ছোট মেয়ে নবম শ্রেণি। লেখালেখির শুরু ছোটবেলা থেকে হলেও তেমন প্রকাশিত নয়। ৩০শে পুরোদমে লিখতে শুরু করি ডায়রির পাতায় এবং ফেসবুক সৌজন্য এনে দিল অপার প্রয়াস, পরিচিতি এবং সৌভাগ্য ২০১৫ তে। প্রকাশিত যৌথ কাব্যগ্রন্থ- সময়ের নক্ষত্র, ভোরের পাখি, হৃদয়ে বাংলাদেশ, স্বপ্ন দিগন্ত, বর্ষা বরণ, বর্ষা উৎসব এবং অনুপ্রাণন ত্রৈমাসিক সাহিত্য পত্রিকাসহ সাহিত্য বিষয়ক বিভিন্ন অনলাইন ম্যাগাজিন ও পত্রিকায় লিখে থাকি নিয়মিত।

Ismat Ara

Showing the single result

Show:

Dbidhagrostho Pa Rakhi Pothe

Highlights:

ভূমিকাঃ

 

যে কথা অন্য কোনভাবেই প্রকাশ করা যায় না । যে কথা প্রকাশ করার জন্য কোন মাধ্যমের দরকার হয়ে পড়ে। যে কথা চার দেয়ালের মাঝে গুমরে গুমরে কাঁদে কখনো কখনো। এমনি একদিন বড় দুঃসময় কবিতা এসেছিল আমার ঘরে আত্মার আত্মীয় হয়ে। বন্ধু, সমাজ, সংসার, প্রিয়জন, স্বজন কেউ কোত্থাও একাকিত্বের স্বর শুনতে পায়নি যখন। নিঃসঙ্গতার সংগে মিশে যেতে যেতে যে কথা কবিতা হয়ে উঠেছিল। কবিতায় খুঁজে ফিরেছিল প্রেরণা, প্রত্যাশা বেঁচে থাকবার অবলম্বন। যে কবিতারা চোখে দেখেছিল অন্যায়, অবিচার, নির্যাতন, ধর্ষণ আবার সৌন্দর্যমহিত অবারিত ফসলের মাঠ, চিরসবুজ নিসর্গ, প্রকৃতি, ঋতু পরিবর্তন, মানবতার বন্ধন,  দেশ, রাজনীতি, নৈতিক শিক্ষা, কত শৈস্যের দীপ্তমহিত সম্ভার। কত স্মৃতি, চেনা -অচেনার সুস্থ প্রতিভার বিশালতা অন্তর্লীনে ঢেউ তুলে কখন যে গড়ে ওঠে কাব্য হয়ে কে তা জানে! স্বপ্ন তাই নতুন প্রত্যাশায় মেলেছে পাখা। লিখে যাব যতদিন প্রাণ আছে পদচ্ছাপ রেখে যাবার প্রত্যয়ে অর্ন্তদেশের অব্যক্ত বর্ণমালার সুনিপুণ কারিগর হয়ে প্রকৃতি ও প্রেমে।

(দ্বিধাগ্রস্ত পা রাখি পথে)

Scroll To Top
Close
Close
Shop
Sidebar
0 Wishlist
0 Cart
Close

My Cart

Shopping cart is empty!

Continue Shopping